ছাত্রশিবির সভাপতির লেখা বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন জামায়াত আমীর

ছাত্রশিবিরের সভাপতি ড. মোবারক হোসাইনের লেখা সমকালীন চ্যালেঞ্জ নেতা ও নেতৃত্ব’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন জামায়াতে ইসলামীর আমীর মকবুল আহমদ। – সগৃহীত
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর মকুবল আহমদ বলেছেন, জ্ঞানচর্চা নেতৃত্বকে আদর্শিক ও দৃঢ় করে গড়ে তোলে।

অযোগ্য নেতৃত্ব জাতিকে হতাশা ছাড়া আর কিছুই দিতে সক্ষম নয়। আদর্শিক ও সাহসী নেতৃত্ব গঠনে সাহিত্য চর্চা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সাহিত্যচর্চার মাধ্যমে যেমনি মূল্যবোধ এবং নৈতিকতার প্রসার ঘটে, তেমনি কাঙ্খিত নেতৃত্ব গঠনেও অসাধারণ ভূমিকা পালন করে।

বুধবার রাজধানীর একটি মিলনায়তনে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. মোবারক হোসাইন রচিত ‘সমকালীন চ্যালেঞ্জ নেতা ও নেতৃত্ব’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন জামায়াত আমীর।

ছাত্রশিবির সেক্রেটারি জেনারেল সিরাজুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন-কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. মোবারক হোসাইন, সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. রেজাউল করিম, ডা. ফখরুদ্দীন মানিক, আবদুল জব্বার, ইয়াছিন আরাফাতসহ সাবেক ও বর্তমান সেক্রেটারিয়েট সদস্যবৃন্দ।

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে মকবুল আহমদ বলেন, আমাদের দেশের যুব-সমাজের একটি বিশাল অংশ আজও বিপদগামী। দেশের তরুণ সমাজের অবক্ষয়ের কারণে নিজেদেরকে ঠেলে দিচ্ছে অন্ধকারের পথে, আসক্ত হচ্ছে মাদকে। ছিনতাই, অপহরণ, গুম, খুন, হানাহানি, নষ্ট রাজনীতি আর সন্ত্রাসে প্রতিনিয়ত জড়িয়ে যাচ্ছে।

উজ্জ্বল ভবিষ্যতকে গলা টিপে হত্যা করে মূল্যবোধ আর নৈতিকতাকে বিসর্জন দিয়ে সব বয়সী মানুষ আজ চলেছে ধ্বংসের পথে। যে ছেলেটির হওয়ার কথা শিক্ষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী বা প্রশাসক সে আজ হয়ে যাচ্ছে চোরাচালানকারী, মাদক ব্যবসায়ী কিংবা সন্ত্রাসী।

একইসাথে এদের মধ্যে থেকেই তৈরি হচ্ছে অনাকাঙ্খিত নেতৃত্ব। ফলে যারা দেশকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল তারা আজ অন্যায় করে ব্যাহত করছে দেশের অগ্রযাত্রাকে। জাতির সার্বিক দূর্ভাগ্যের মূল কারণ অনাকাঙ্খিত নেতৃত্ব। এ শুন্যতা পূরণের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে হবে।

আর কাঙ্খিত নেতৃত্ব গঠনে জ্ঞান চর্চার কোন বিকল্প নেই। আদর্শিক ও সাহসী নেতৃত্ব গঠনে সাহিত্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
তিনি বলেন, সফলতা অর্জন তরুণ প্রজন্মের আকাঙ্খিত বিষয়। আর কাঙ্খিত তরুণ প্রজন্ম গঠনে চাই প্রত্যাশিত নেতৃত্ব যারা যোগ্যতার সাথে সমকালীন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে সক্ষম।

এ বইটিতে সেই বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। জাতির প্রত্যাশিত নেতৃত্ব গঠনে এ বইটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। বইটি তরুণ প্রজন্মের অনুপ্রেরণার খোরাক হিসেবে ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি। আমরা আশাকরি তরুণ প্রজন্ম বইটি অধ্যয়নের মাধ্যমে নিজেদেরকে সফলতার দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বইটির সাফল্য কামনা করছি।

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে