এবার হংকং পার্লামেন্টে এমপিদের হাতাহাতি, মারামারি !

একটি আইনের সংশোধনী প্রস্তাব নিয়ে পার্লামেন্ট কক্ষে শনিবার মারামারিতে জড়িয়েছেন হংকংয়ের আইনপ্রণেতারা। যে ঘটনাকে দেশটির বিষাদের দিন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন বেইজিংয়ের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত এক এমপি।

হংকংয়ের কোনো বাসিন্দার নামে চীনে, ম্যাকাউ কিংবা তাইওয়ানে মামলা হলে, তাকে প্রয়োজনে সেসব স্থানে পাঠানোর বিধান রেখে এই আইন সংশোধনীর প্রস্তাবটি দেয়া হয়েছে। বিবিসির খবর বলা হয়েছে, শনিবার সাংবাদিকদের সামনে এ মারামারিতে বেশ কয়েকজন এমপি আহত হয়েছেন।

তাদের একজনকে হাসপাতালেও নেয়া হয়েছে। অনেকের আশঙ্কা, যে আইনের সংশোধনী নিয়ে এই দ্বন্দ্ব, তা বাস্তবায়ন হলে হংকংয়ের স্বাধীনতা খর্ব হতে পারে। আইনটি পরিবর্তন হলে হংকংয়ের নাগরিকদের সহজেই চীনের কাছে হস্তান্তর করা যাবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, ছুটিতে তাইওয়ান গিয়ে গর্ভবতী বান্ধবীকে খুন করে বাড়ি ফিরে আসা এক নাগরিককে তাইপের কাছে তুলে দিতে তারা এ সংশোধনী আনতে চাইছেন। বেইজিংর কাছে স্বাধীনতা বিকিয়ে দেয়ার প্রশ্ন এখানে নেই।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, মাইক্রোফোনের দখল নিয়ে হাতাহাতি ও মারামারিতে জাড়িয়েছেন এমপিরা। এক পর্যায়ে গণতন্ত্রপন্থী আইনপ্রণেতা গ্যারি ফেন মাটিতে পড়ে যান। এরপর স্ট্রেচারে করে তাকে বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

চীনপন্থী এক পার্লামেন্ট সদস্যকেও পরে স্লিংয়ে হাত ঝুলিয়ে রাখতে দেখা গেছে। গত মাস থেকেই এই আইন সংশোধনের বিপক্ষে একের পর বিক্ষোভ হচ্ছে হংকংয়ে। ব্যবসায়ীদের মধ্যে যারা কট্টরপন্থী তারাও এ সংশোধনীর বিরোধী।

আরো পড়ুন:

মাটির নিচের গোপন কারাগারে ২৪ বছর পরে খুঁজে পাওয়া গেল সুদানের সাবেক মন্ত্রীকে!

আফ্রিকান দেশ সুদানের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী কর্নেল ইব্রাহিম ছামসাদিনের একটি হৃদয়বিদারক ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেখানে উল্লেখ করা হচ্ছে, স্বৈরশাসনের প্রতিবাদ করায় প্রায় ২৪ বছর আগে জেলে পাঠানো ইব্রাহিম ছামসাদিনকে সুদানের রাজধানী খার্তুমের একটি মাটির নিচের গোপন কারাগারে খুঁজে পাওয়া গেছে।

ছবিটিতে দেখা যায়, রোগা-মলিন চেহারায় অপুষ্টিতে ভোগা একজন বৃদ্ধা খালি শরীরে বালির উপর বসে আছেন। তার পরনে একটি জীর্ণশীর্ণ লুঙ্গি। অসহায় দৃষ্টিতে তিনি তাকিয়ে আছেন ক্যামেরার দিকে। ছবিটিতে দেখা যায়, অন্ধাকারে আলো ফেলে ছবি তোলা হয়েছে। সাবেক এই মন্ত্রীকে আটকে রাখা স্থানটি একটি গুহা।

সেই সাথে ইব্রাহিম ছামসাদিনের ঘুমন্ত অবস্থার ছবিও প্রকাশ পায়। সেখানে দেখা যায়, এক টুকরো কাঠের উপর মাথা রেখে বালির উপর শুয়ে আছেন সুদানের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী। জানা যায়, সুদানের স্বৈরশাসক ওমর আল-বশির তার অবৈধ শাসনের প্রতিবাদ করায় ১৯৯৫ সালে দেশটির তৎকালীন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইব্রাহিম ছামসাদিনকে জেলে পাঠান।

শুধু তাই নয়, ২০০৮ সালে সুদান সরকার রাষ্ট্রীয়ভাবে ঘোষণা করে যে, সাবেক প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইব্রাহিম ছামসাদিন বিমান দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। আফ্রিকাভিত্তিক একাধিক সংবাদ মাধ্যমের তথ্য অনুসারে, সম্প্রতি সুদানের রাজধানী খার্তুমের একটি মসজিদের আন্ডারগ্রাউন্ডে একটি গোপন কারাগারের খোঁজ পাওয়া যায়।

সেখানে ইব্রাহিম ছামসাদিনকে খুঁজে পাওয়া যায়। ইব্রাহিম ছামসাদিনের বর্তমান অবস্থার সাথে সাথে তার মন্ত্রী থাকাকালীন একটি ছবিও প্রকাশ করে আফ্রিকান গণমাধ্যমগুলো। উল্লেখ্য, দেশটির সাবেক স্বৈরশাসক ওমর আল-বশির নিজেও বর্তমানে জেলখানায় আছেন।

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে