হঠাৎ দূতাবাসের কর্মীদের ইরাক ছাড়ার নির্দেশ আমেরিকার !

ইরানের সাথে চলমান উত্তেজনার মধ্যে ইরাক দূতাবাসে নিয়োজিত জরুরি নয়; এমন সরকারি কর্মচারীদের দূতাবাস ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে ওয়াশিংটন।বুধবার এ খবর জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

বুধবার মার্কিন দূতাবাসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইরাকের রাজধানী বাগদাদ এবং এরবিলে নিয়োজিত দূতাবাসের অপ্রয়োজনীয় কর্মচারীদের দেশে ফেরার নির্দেশ দিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর।তবে ঠিক কতসংখ্যক কর্মীকে ইরাক ছাড়তে হবে সে ব্যাপারে পরিষ্কার কোনো তথ্য দেয়নি মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়,‘এই দুই দূতাবাসে সাময়িকভাবে সাধারণ ভিসা সার্ভিস বন্ধ থাকবে।’ এর আগে ইরাকে অবস্থানরত মার্কিন সামরিক বাহিনীর সদস্যদের ওপর ইরানি হামলা করতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করে ওয়াশিংটন।

এদিকে, ইরাকের প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদুল মাহদি বলেছেন, তিনি ইরান এবং আমেরিকার কাছে থেকে আলোচনার ইঙ্গিত পেয়েছেন। আলোচনায় বসলে দুই দেশের মাঝে চলমান উত্তেজনা প্রশমিত হতে পারে বলে প্রত্যাশা করেছেন তিনি।সূত্র : রয়টার্স, এএফপি।

ইরানে হামলা চালাতে নারাজ ব্রিটেন মধ্যপাচ্যের জন্য ইরান হুমকি বলে আমেরিকা যে প্রচারণা চালাচ্ছে তার সাথে দ্বিমত পোষন করেছেন মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালনকারী ব্রিটিশ সামরিক কর্মকর্তা মেজর জেনারেল ক্রিস গিকা।

মঙ্গলবার মার্কিন সেনা সদরদপ্তর পেন্টাগনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।এ খবর জানিয়েছে ইরানি সংবাদ মাধ্যম পার্সট্যুডে। তিনি বলেন,ইরাক ও সিরিয়ায় ইরান সমর্থিত যে সেনা রয়েছে তারা হুমকি নয়।

কারণ তেহরান এবং ওয়াশিংটনের মধ্যকার সম্প্রতিক উত্তেজনার পরও ইরান সমর্থিত শক্তির আচরণে কোনো পরিবর্তন আসে নি এবং আশা করা যায় এটি অব্যাহত থাকবে।আপাতত আমরা সেখানে কোনো বাড়ন্ত হুমকি দেখছি না।

ব্রিটিশ জেনারেলের মন্তব্যের পর ক্ষোভ প্রকাশ করে মার্কিন সেন্টকমের প্রধান মুখপাত্র ক্যাপ্টেন বিল আরবান বলেন,ব্রিটিশ সেনা কর্মকর্তার মন্তব্য আমেরিকার বিরুদ্ধে যায়।যা মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়।কারণ ইরাক-সিরিয়াসহ এ অঞ্চলে ইরান অবশ্যই।

এর আগে ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে স্পেন।এজন্য পারস্য উপসাগর থেকে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ইরানবিরোধী জোট থেকে একটি রণতরী প্রত্যাহার করে নিয়েছে স্পেন। স্পেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে,স্পেনের মেন্ডেজ নুনেজ রণতরীতে ২১৫ জন নাবিক রয়েছেন।

তারা আমেরিকার বিমানবাহী রণতরীর সঙ্গে পারস্য উপসাগরের হরমুজ প্রণালী অতিক্রম করবে না।কারণ আমেরিকা-ইরান পটভূমিতে এ অঞ্চলে উত্তেজনা বাড়ছে। স্পেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাগ্রারিটা রবলেস জানিয়েছেন, সাময়িকভাবে তাদের রণতরী মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধবহরের সঙ্গে যাচ্ছে না।

সুত্র: arabianjournal

আরো সংবাদ পরতে পারেন

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে