সংলাপে ইরান চ্যাম্পিয়ন, তবে ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে কথা নয়: রুহানি

ইরানের শীর্ষ নির্বাহী বলেন, “এই মুহূর্তে পরিস্থিতি মোটেও সংলাপের অনুকূলে নয়। আজ আমাদের নীতি হচ্ছে প্রতিরোধ এবং দৃঢ় মনোবল প্রদর্শন করা।” আমেরিকার চাপ ও অর্থনৈতিক যুদ্ধের মোকাবিলায় ইরানের সরকার ও জনগণ কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে প্রতিরোধ চালিয়ে যাবে বলে তিনি প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, সংকট সমাধানে সংলাপের দিক দিয়ে তার দেশ চ্যাম্পিয়ন হওয়া সত্ত্বেও বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে কোনো ধরনের সংলাপে বসবে না তেহরান।

তিনি সোমবার রাজধানী তেহরানে আলেম ও ধর্মীয় নেতাদের এক সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে একথা বলেন। প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, “আমি ব্যক্তিগতভাবে সংলাপ ও কূটনীতিতে বিশ্বাসী। কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমি কিছুতেই (আমেরিকার সঙ্গে) সংলাপের অনুমতি দেব না।”

আলেমদের বক্তব্য শুনছেন প্রেসিডেন্ট রুহানি
ইরানের প্রেসিডেন্ট জানান, গত বছর জাতিসংঘের বার্ষিক সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে তিনি যখন নিউ ইয়র্ক সফর করছিলেন তখন পাঁচজন বিশ্বনেতা তাকে সংলাপের প্রস্তাব দিলেও তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেন।

এ ছাড়া, গত বছরই ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে আটবার আলোচনায় বসার প্রত্যাখ্যান করে ইরান। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের পক্ষ থেকে এসব প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল বলে প্রেসিডেন্ট রুহানি জানান।

দ্বিতীয় বারের মতো ক্বিরাত সম্মেলনে অষ্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন ক্বারী আহমাদ বিন ইউসুফ

আজ বুধবার (২১ মে) রাত ১১:৫৫ মিনিটে অষ্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে তিনি ঢাকা ত্যাগ করবেন।
পবিত্র রমজান উপলক্ষে অষ্ট্রেলিয়ার সিডনির অধিবাসী এবং আরব দেশের সংগঠন “ইসলামিক হেল্প অর্গনাইজেশন”

কর্তৃক আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথী হিসেবে অংশগ্রহন করবেন। এছাড়া সিডনির বিভিন্ন মসজিদেও তাঁর তেলাওয়াত করার কথা রয়েছে।

আন্তর্জাতিক কুরআন তেলাওয়াত সংস্থার (ইক্বরা) এর সভাপতি, বাংলাদেশ ক্বিরাত ইনস্টিটিউট এর পরিচালক শাইখ আহমাদ বিন ইউসুফ আল-আযহারী অষ্ট্রেলিয়া সফরে যাচ্ছেন। এটি তার দ্বিতীয় বারের মতো অস্ট্রেলিয়া সফর।

সম্মেলন ও বিভিন্ন প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ শেষে ২ জুন তাঁর দেশে ফিরে আসার কথা রয়েছে।
তিনি বাংলাদেশের বিশুদ্ধ কুরআন তিলাওয়াতের পথপ্রদর্শক ক্বারী মো. ইউসুফ রহ. এর জ্যেষ্ঠ পুত্র।

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে