ট্রাম্পের শেষ দেখবে ইরান, কিন্তু ট্রাম্প কখনো ইরানের শেষ দেখতে পাবে না: ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্প্রতি ইরানকে ‘শেষ করে’ দেয়ার যে হুমকি দিয়েছিলেন সে সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ।

তিনি বলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শেষ দেখতে পাবে ইরান কিন্তু ট্রাম্প কখনো ইরানের শেষ দেখতে পাবেন না।” গত সপ্তাহে ট্রাম্প এক টুইটার বার্তায় লিখেছিলেন, “ইরান যদি যুদ্ধ করতে চায় তাহলে তা হবে ইরানের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি।”

তেহরানের পক্ষ থেকে কোনো ধরনের উসকানি বা প্ররোচনা ছাড়াই অনর্থক ওই মন্তব্য করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বৃহস্পতিবার তিনি আরেক বক্তব্যে ইরানকে তার ভাষায় ‘সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র’ হিসেবে অভিহিত করেন।

ইসলামাবাদে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করছেন মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ
পাকিস্তান সফররত ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফের কাছে শুক্রবার ট্রাম্পের এসব মন্তব্য সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চান সাংবাদিকরা।

জবাবে জারিফ বলেন, ট্রাম্পের এসব মন্তব্যে ইরানি জনগণের প্রতি তার প্রকৃত মনোভাব ফুটে উঠেছে। যদিও তিনি মাঝেমধ্যে আনুষ্ঠানিক বক্তব্যে দাবি করেন, ইরানি জনগণের প্রতি তার প্রশাসনের দরদ রয়েছে।

মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেন, কয়েক হাজার বছর ধরে ইরান টিকে আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। কিন্তু যে দেশটির (আমেরিকা) বয়স কয়েকশ’ বছরের বেশি নয় ইরানের জনগণকে নিয়ে এ ধরনের বক্তব্য দেয়ার অধিকার কোনো অবস্থায় তার নেই।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইরানের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দিয়ে বিশেষ করে খাদ্য ও ওষুধ আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে ট্রাম্প প্রশাসন যা করছে সেটিই বরং সন্ত্রাসবাদ। কাজেই ট্রাম্প সন্ত্রাসবাদের যে তকমা ইরানের গায়ে লাগাতে চেয়েছেন তা তার নিজের জন্যই বেশি মানানসই বলে উল্লেখ করেন জারিফ।

তথ্য সুত্র: পার্সটুডে

ইসলাম গ্রহন করলেন টানা ৭ বছর খ্রিস্টান ধর্ম প্রচার করা এই মার্কিন নারী

এক সময় কট্টর খ্রিস্টান মৌলবাদী ধর্ম প্রচারক ছিলেন। টানা ৭ বছর ধরে করেছেন খ্রিস্টান ধর্মের প্রচার।কিন্তু শেষমেশ ইসলাম ধর্মের মহিমায় মুগ্ধ হয়ে হয়েছেন মুসলিম।

ওই নারীর নাম সুই ওয়াটসন। ইসলাম গ্রহণ করার পর নাম পরিবর্তন করে রাখেন খাদিজা ওয়াটসন। যক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় জন্ম। ধর্মতত্ত্বের ওপর রয়েছে তার সর্বোচ্চ শিক্ষা ও গবেষণা।

ইসলাম গ্রহণ করা সম্পর্কে তিনি আরব নিউজকে বলেন, আমি একদিন এক নারীর সঙ্গে দেখা করি যিনি ইসলাম গ্রহণ করেন। আমি তাকে ইসলামের চোখে কিভাবে নারীদের দেখা হয় তা জানতে চাই।

আমি তার উত্তর শুনে অবাক হই যে নারীদের সমান ও শ্রদ্ধার চোখে দেখা হয় ইসলামে। এরপর আমি তার কাছে আল্লাহ এবং হযরত মোহাম্মদ (স.) সম্পর্কে জানতে চাই। এর জবাবে তিনি আমায় এক ইসলামিক সেন্টারে নিয়ে যান।

সেখানে তারা আমায় কিছু বই দিয়ে তা পড়তে বলে। তা পড়ে আমি মুগ্ধ হয়ে যাই। যতই এসব পড়তে থাকি আমার ইসলামের প্রতি মুগ্ধতা বাড়তেই থাকে। শেষমেশ ইসলাম গ্রহণ করি।

বর্তমানে খাদিজা তিনি সৌদি আরবের জেদ্দায় আল-হামরা এডুকেশন ফাউন্ডেশনের শিক্ষক।

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে