কার্টুন দেখা আর নরেন্দ্র মোদির শপথ গ্রহণ দেখার মধ্যে কোন পার্থক্য নেইঃ অমর্ত্য সেন

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. অমর্ত্য সেন এক সুন্দর উপমা তুলে ধরেছেন। তিনি বলেন যে, “মোদির শপথ গ্রহণ দেখার থেকে কার্টুন দেখা বেশি ভালো।

কারন একজন সু- শাসকের যে সমস্ত গুণাবলি থাকা দরকার, সেই সমস্ত গুণাবলির যথেষ্ট অভাব রয়েছে নরেন্দ্র মোদির মধ্যে। তার আমলে দেশ অনেক পিছিয়ে গেছে এবং আগামীতে যে আরো অনেক পিছিয়ে যাবে তাতে কোন সন্দেহ নেই।

এই সরকারের শাসনকালে দেশে দুর্নীতি বেড়ে যাওয়ায় যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। আর সবচেয়ে বড় কথা হল মোদির গায়ে দুর্নীতির তকমা লেগে রয়েছে।” তিনি আরো বলেন যে, “এমন অবস্থায় তাকে সাধারণ মানুষ কিভাবে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে বেছে নিল তা চিন্তার বিষয়।

অনেক সময় সাধারণ মানুষ আবেগের বশীভূত হয়ে পড়ে। তখন তাদের বুদ্ধি লোপ পায়। ভালমন্দের বিচার করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে মানুষের মধ্যে বিচার বিবেচনার থেকে আবেগ বেশি কাজ করেছে, তাই মোদির শপথ গ্রহণ না দেখাই ভালো।

বিজেপি হিন্দুত্বের কার্ড খেলে সফল হয়েছে: ওয়াইসি

অল ইন্ডিয়া মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বলেছেন, দেশে হিন্দুদের থেকে নয়, হিন্দুত্ববাদ থেকে বিপদ রয়েছে। লোকসভা নির্বাচনে হিন্দুত্ববাদী বিজেপির বিপুল জয়ের পরে আজ (শুক্রবার) এক বেসরকারি টিভি চ্যানেলে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি ওই মন্তব্য করেছেন।

ওয়াইসি বলেন, ‘ইলেকট্রনিক ভোট যন্ত্রে (ইভিএম) নয়, হিন্দু মনের সঙ্গে কারচুপি হয়েছে। এই নির্বাচনে জাতপাত ও ধর্ম মুখ্য বিষয় হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। বিজেপি হিন্দুত্বের কার্ড খেলেছে এবং তারা সফল হয়েছে। গোটা নির্বাচনে উন্নয়নের ইস্যু অনুপস্থিত ছিল।’

তিনি বলেন, ‘আমি কোনো হিন্দু ভাইয়ের বিরোধী নই, আমি হিন্দুত্বের বিরোধী ছিলাম, আছি এবং থাকব ইনশাআল্লাহ্‌ যতদিন বেঁচে থাকব।’

ওয়াইসি বলেন, ‘মোদি গেরুয়া নিকাব পরে দেশের জনতার মনে রিগিং করেছেন। আমি মনে করি বিজেপির সফলতার মধ্যে রাজনৈতিক মুসলিম নির্মূলকরণ আরও বাড়বে। কারণ ৩০৩ আসনে বিজেপি জয়ী হলেও এনডিএ’র কাছে কেবল একমাত্র মুসলিম আছে, বিজেপি’র কোনো মুসলিম প্রার্থী জয়ী হননি। ওনার (প্রধানমন্ত্রীর) যে কথা, ‘সবার সঙ্গে সকলের উন্নয়ন’ এটা একদমই সত্যি নয়। এজন্য আমি বলতে চাই মুসলিম রাজনৈতিক নির্মূলকরণ বাড়বে এবং এটা আমাদের গণতন্ত্রের জন্য ঠিক নয়।’

ওয়াইসি বলেন, ‘এটা অবশ্যই বলার যে বিরোধী দলগুলো বারবার যে বলছে ইভিএম কারচুপি হয়েছে, আমি মনে করি বিগত পাঁচ বছরে নরেন্দ্র মোদি ও আরএসএস হিন্দু মনে কারচুপি করেছে। জাতীয়তাবাদ ও আগ্রাসী হিন্দু পরিচিতিকে সামনে রেখে ওরা সফল হয়েছে, বিরোধীরা যার মোকাবিলা করতে পারেনি। ফলে বেকারত্ব থেকে বিভিন্ন ইস্যু সামনে আসেইনি।’

লোকসভা নির্বাচনে হায়দ্রাবাদ থেকে ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে, মহারাষ্ট্রের আওরঙ্গবাদ থেকে জয়ী হয়েছেন ‘মিম’ প্রার্থী ইমতিয়াজ জলিল।

ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে