সব চেষ্টাই ব্যর্থ: ৪৮০টি বিমান থেকে ২৫০ লাখ টন পানি ফেলেও নিয়ন্ত্রণে আসছে না ইসরায়েলের দাবানল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইলে ৬৩০টি দাবানলের আগুন নিভাতে কাজ করছে ৪৮০টি অগ্নিনির্বাপক বিমান। রবিবার এসব বিমানের সাহায্যে আড়াই লাখ টন পানি মাটিতে ফেলা হয়েছে। প্রায় ২,৫০০ জন অগ্নিনির্বাপক কর্মী কাজ করছে।

ইসলাম ধর্মের পবিত্র আযানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির উদ্যোগ নেয়ার পর থেকে শুরু হওয়া এই দাবানল এখনো নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয় নি। দাবানল অধিকৃত পশ্চিম তীরের অবৈধ ইহুদি বসতি এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে।

প্রচণ্ড খরা ও শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে চলতি সপ্তাহে অধিকৃত ইসরাইলি ভূখণ্ডে দাবানল ছড়িয়ে পড়ে। দাবানলে সেখানকার আবাসিক এলাকা এবং বনাঞ্চল ব্যাপকভাবে ধ্বংস হয়ে গেছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছে হাজার হাজার মানুষ।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু সব ক্ষতিগ্রস্তদের সব রকমের সহায়তায় আশ্বাস দিয়েছেন। বন রক্ষা করার প্রচেষ্টায় অতিরিক্ত কর্মী যোগদান করেছে বলে কর্মকর্তারা জানান।

সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হাইফা শহরের লোকজন ঘরে ফিরতে শুরু করেছে। তারা ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করছে। সূত্র: জেরুজালেম পোস্ট

আরও সংবাদ

জার্মানিতে একটি মসজিদ পুড়িয়ে দিল দুর্বৃত্তরা

জার্মানির হ্যাগেন শহরে একটি মসজিদ পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। ভাঙচুরের পর আগুনও ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। জার্মানিতে ক্রমেই মুসলিম ও ইসলাম বিদ্বেষের ঘটনা বাড়ছে। এ ঘটনা তারই অন্যতম উদাহরণ বলে মনে করা হচ্ছে।

আনাদোলু এজেন্সির এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে যে, হামলার শিকার নর্থ রাইন-ওয়েস্টফ্যালিয়া প্রদেশে অবস্থিত মসজিদটি ‘গ্রেট মস্ক অব হ্যাগেন’ নামে পরিচিত ছিল। জার্মানির সর্ববৃহৎ তুর্কি-মুসলিম সংগঠন ‘ইসলামিক কমিউনিটি ন্যাশনাল ভিউ’ (IGMG) মসজিদটি পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে।

সিসিটিভি ফুটেজে এক সন্দেহভাজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। তবে এ হামলায় কেউ হতাহত না হলেও ক্ষয়ক্ষতির তথ্য নিশ্চিত করেছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ।

উগ্র ডানপন্থী রাজনীতির উত্থানে সম্প্রতি জার্মানিতে বেড়েছে ইসলামবিদ্বেষ। গত বছর মুসলিমদের লক্ষ্য করে দেশটিতে ৮০০ এর বেশি হামলা পুলিশের তালিকাভুক্ত হয়েছে।জার্মানিতে মোট ৪.৭ মিলিয়ন মুসলমান বাস করেন। যার প্রায় ৩ মিলিয়ন মুসলমান তুরস্কের।

আরো সংবাদ পরতে পারেন

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে