মুসলিম উম্মাহ্‌কে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন এরদোগান

তুর্কী প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি আশা করি এই ঈদের মাধ্যমে আমাদের মুসলিম ভাইদের সকল দুঃখ-কষ্ট ম্লান হবে। আমরা সকলে বিভেদ ভুলে আবারো এক হতে পারবো।

তুর্কী জনগণ ও বিশ্বের মুসলমানদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান। সোমবার (৩ জুন) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে এ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এরদোগান আরো বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য যে এই ঈদেও আমাদের মুসলিম ভাইগন শান্তিতে নেই। দুঃখ, কষ্ট, জুলুম, নির্যাতনে তারা আজ নিপিড়ীত। আদতে ঈদ আসলেও তাদের মনে কোনো আনন্দ নেই।

এরদোগান বলেন, সারা রমজান মাস রোজা পালন করে, রহমত-মাগফিরাত-নাজাত শেষ করে ঈদ আমদের জন্য বিশেষ আনন্দ বয়ে আনে।

আকসা প্রাঙ্গনে ঢুকে এবাদতরত মুসল্লিদের ওপর হামলা চালাল ইহুদীরা

মুসলিমদের জন্য আল-আকসা বিশ্বের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান। আর ইহুদিরা দাবি করছে, এখানে প্রাচীন যুগে দুটি মন্দির ছিল। ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধে ইসরাইল পশ্চিম জেরুজালেম দখল করে নেয়। যেখানে আল-আকসা মসজিদটি রয়েছে।

রমযানের শেষ দিকে জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদে ঢুকে এবাদতরত মুসল্লিদের ওপর হামলা ও মসজিদের গেট ভাঙচুর করেছে উগপন্থী ইহুদীদের একটি দল।

তারা রোববার সকালে দলবদ্ধ হয়ে আল আকসায় প্রবেশ করে। হামলার বিষয়টি ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে। খবর ইয়েনি শাফাকের।

আল-আকসা মসজিদের পরিচালক ওমর কিসওয়ানি বলেন, সকাল থেকে ১১৭৯ জন ইহুদি চরমপন্থী জোর করে ঝড়ের গতিতে মসজিদ প্রাঙ্গণে প্রবেশ করেন।

তিনি আরও বলেন, তারা পবিত্র রমযান মাসে ভয়াবহ সহিংসতা চালায়। তারা ইসরাইলি পুলিশের নিরাপত্তা নিয়ে আলমুগারা গেট ভাঙচুর করে।

যারা তাদের অনুপ্রবেশে বাধা দিয়েছিল, তারা ইসরাইলি পুলিশের সহযোগিতায় এবাদতরত মুসলমানদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ সময় তিনজন ইবাদতরত মুসলমান ও একজন নিরাপত্তাকর্মীকে গ্রেফতার করে ইসরাইলি পুলিশ।

ইহুদি গোষ্ঠী রোববারের এ সংঘর্ষকে পূর্ব জেরুজালেম দখলের বার্ষিক উদযাপন বলে ঘোষণা করে। ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরাইল যুদ্ধের সময় আল-আকসাসহ পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ইসরাইলি বাহিনী।

তুর্কী প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি আশা করি এই ঈদের মাধ্যমে আমাদের মুসলিম ভাইদের সকল দুঃখ-কষ্ট ম্লান হবে। আমরা সকলে বিভেদ ভুলে আবারো এক হতে পারবো।

তুর্কী জনগণ ও বিশ্বের মুসলমানদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান। সোমবার (৩ জুন) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে এ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এরদোগান আরো বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য যে এই ঈদেও আমাদের মুসলিম ভাইগন শান্তিতে নেই। দুঃখ, কষ্ট, জুলুম, নির্যাতনে তারা আজ নিপিড়ীত। আদতে ঈদ আসলেও তাদের মনে কোনো আনন্দ নেই।

এরদোগান বলেন, সারা রমজান মাস রোজা পালন করে, রহমত-মাগফিরাত-নাজাত শেষ করে ঈদ আমদের জন্য বিশেষ আনন্দ বয়ে আনে।

আকসা প্রাঙ্গনে ঢুকে এবাদতরত মুসল্লিদের ওপর হামলা চালাল ইহুদীরা

মুসলিমদের জন্য আল-আকসা বিশ্বের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান। আর ইহুদিরা দাবি করছে, এখানে প্রাচীন যুগে দুটি মন্দির ছিল। ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধে ইসরাইল পশ্চিম জেরুজালেম দখল করে নেয়। যেখানে আল-আকসা মসজিদটি রয়েছে।

রমযানের শেষ দিকে জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদে ঢুকে এবাদতরত মুসল্লিদের ওপর হামলা ও মসজিদের গেট ভাঙচুর করেছে উগপন্থী ইহুদীদের একটি দল।

তারা রোববার সকালে দলবদ্ধ হয়ে আল আকসায় প্রবেশ করে। হামলার বিষয়টি ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে। খবর ইয়েনি শাফাকের।

আল-আকসা মসজিদের পরিচালক ওমর কিসওয়ানি বলেন, সকাল থেকে ১১৭৯ জন ইহুদি চরমপন্থী জোর করে ঝড়ের গতিতে মসজিদ প্রাঙ্গণে প্রবেশ করেন।

তিনি আরও বলেন, তারা পবিত্র রমযান মাসে ভয়াবহ সহিংসতা চালায়। তারা ইসরাইলি পুলিশের নিরাপত্তা নিয়ে আলমুগারা গেট ভাঙচুর করে।

যারা তাদের অনুপ্রবেশে বাধা দিয়েছিল, তারা ইসরাইলি পুলিশের সহযোগিতায় এবাদতরত মুসলমানদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ সময় তিনজন ইবাদতরত মুসলমান ও একজন নিরাপত্তাকর্মীকে গ্রেফতার করে ইসরাইলি পুলিশ।

ইহুদি গোষ্ঠী রোববারের এ সংঘর্ষকে পূর্ব জেরুজালেম দখলের বার্ষিক উদযাপন বলে ঘোষণা করে। ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরাইল যুদ্ধের সময় আল-আকসাসহ পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ইসরাইলি বাহিনী।

আরো সংবাদ পরতে পারেন

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে