প্রথমবারের মত সৌদি আরবে নির্মাণ হতে যাচ্ছে খ্রিস্টান গির্জা

উপসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যে খ্রিস্টান উপাসনালয় বা গির্জা নেই, এমন দেশ হিসেবে আর থাকছে না সৌদি আরব। দেশটিতে গির্জা প্রতিষ্ঠা করতে স্থানীয় এক ওয়াহাবি নেতা ও ভ্যাটিকানের কার্ডিনালের মধ্যে ইতিমধ্যে একটি চুক্তি সই হয়েছে।-খবর আরটি অনলাইনের।

এক জ্যেষ্ঠ ক্যাথলিক কর্মকর্তা বলেন, এটা হবে আমাদের সম্পর্ক পুর্নস্থাপনের শুরু। সৌদি কর্তৃপক্ষ দেশটিকে এক নতুন পরিচয় ও রূপে হাজির করতে চাচ্ছেন, এটা তারই আলামত।

আন্তঃধর্মীয় সংলাপের জন্য গঠিত বিশপ পরিষদের প্রধান জন লুইস তাওরিন গত মাসে এক সপ্তাহের জন্য সৌদি সফরে গিয়েছিলেন। তার এ সফর নিয়ে সৌদি আরবের স্থানীয় সংবাদমধ্যমগুলো অনেক সংবাদ পরিবেশন করলেও আন্তর্জাতিক পত্রিকাগুলো নিশ্চুপ ছিল।

রিয়াদ সফরে লুইস তাওরিন সৌদি সিংহাসনের উত্তরসূরি মোহাম্মদ বিন সালমানসহ বেশ কয়েকজন ধর্মীয় নেতার সঙ্গে বৈঠক করেন। সৌদি আরবের অন্যতম ওয়াহাবি এনজিও মুসলিম ওয়ার্ল্ড লিগের মহাসচিব শেখ মোহাম্মদ বিন আবদেল কারিম আল ইসসা ও লুইস তাওরিনের মধ্যে এই চুক্তিটি সই হয়েছে।

তারা কেবল একটি উপাসনালয় নির্মাণ করেই ক্ষান্ত হবেন না, প্রতি দুই বছর পর পর মুসলিম-খ্রিষ্টান সম্মেলনের আয়োজন করারও পরিকল্পনা করেছেন।

গত কয়েক দশকে সৌদি আরবে বহু অমুসলিম অভিবাসী আশ্রয় নিয়েছেন। দেশটিতে এখন প্রায় ১৫ লাখ অভিবাসী রয়েছেন, যাদের অধিকাংশ ফিলিপাইন থেকে এসেছেন।

ইসলামি নীতিমালা মেনে না চলায় ইরানের ৫৪৭ রেস্তোরাঁ বন্ধ!

ইসলামি নীতিমালা মেনে না চলায় তেহরানের ৫৪৭টি রেস্তোরাঁ এবং ক্যাফে বন্ধ করে দিয়েছে ইরানের পুলিশ। শনিবার রাজধানী তেহরানের পুলিশ প্রধান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশফোর্স ওয়েবসাইটের এক বিবৃতিতে পুলিশ প্রধান হোসেইন রাহিমী বলেন, যেসব রেস্তোরাঁ ও ক্যাফে ইসলামিক নীতিমালা মেনে চলেনি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। অভিযান চালিয়ে ৫৪৭টি রেস্তোরাঁ ও ক্যাফে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া ১১ অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে