সেলফি-লাইভে ব্যস্ত উপস্থিত জনতা,সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন শিক্ষার্থীরা

‘একটু সাইড দিন। সামনে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের পাইপটা একটু ধরি। ভাই মোবাইলটা সরান। ছবি তুলে কি হবে। পারলে সাহায্য করেন।’উৎসুক জনতাকে সরিয়ে ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে কাজ করতে এভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী রবিউল।

সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বনানীতে আগুন দেখতে উৎসুক জনতার ভিড় বাড়ছে। কামাল আতাতুর্ক এভিনিউতে যান চলাচল বন্ধ করা হলেও মানুষজন পায়ে হেটেই ঘটনাস্থলে আসছেন।

প্রস্ঙ্গত, বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটে এ আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিস বলছে ভবনের ৯তলা থেকে আগুনের সূত্রপাত।

আগুনের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এদেরমধ্যে ১০তলার একটি অফিস থেকে বেঁচে ফেরা একজন চারজনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন। তার মধ্যে একজন বিদেশী নাগরিক আছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিট কাজ করে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে বিল্ডিংয়ের ওপর থেকে হেলিকপ্টার থেকে বালু ফেলে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। ছাদ থেকে হেলিকপ্টারে উদ্ধার করা হচ্ছে মানুষদের।

জ্বলন্ত ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে বাঁচার চেষ্টা

ঝিনাইদহের চোখ ডেস্ক: রাজধানীর বনানীর ১৭ নম্বর রোডের এফ আর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুন লাগার পর মুহূর্তের মধ্যে তা পাশের অপর একটি ভবনে ছড়িয়ে পড়েছে। আগুন লাগার পর ওই ভবনের বিভিন্ন তলা থেকে লাফিয়ে পড়ে গুরুতর আহত হয়েছেন ৪জন। ওই ভবনে আরও বহু মানুষ আটকা পড়েছে বলে জানা গেছে।

সবশেষ আগুন থেকে জীবন বাঁচাতে বাইশ তলা ভবনটি থেকে একজন লাফিয়ে পড়েছেন।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার এনায়েতউল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অপরদিকে লাফিয়ে পড়ে আহত শ্রীলংকার এক নাগরিককে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তার নাম ও পরিচয় জানা যায়নি।

আটকা পড়া অনেকে আবার রশি বেয়ে নামার চেষ্টা করছে। এরই মধ্যে অন্তত দুইজন রশি বেয়ে নামতে সক্ষম হয়েছে। তবে, এখনও ভেতরে আটক পড়ে আছে অনেক মানুষ।

ভবনটিতে দুপুর একটার দিকে আগুন লাগে। কিন্তু আগুনের সূত্রপাত কোথা থেকে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা ধারণা করছেন, ভবনের নীচে থেকেই আগুন লেগেছে।

আরো সংবাদ পরতে পারেন

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে