খালেদা জিয়ার প্রতি সন্মান দেখাতে প্রধানমন্ত্রীকে ৩০ টাকার ইফতারের দাওয়াত দিল বিএনপি!

সে কারণে বিএনপি নেতারা শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত নেন, সবার জন্যই ৩০ টাকার ইফতার আইটেমের ব্যবস্থা করবেন তারা। বিএনপি সূত্র বলছে, এই ৩০ টাকার ইফতারের প্যাকেজে থাকবে ছোট একটি পানির বোতল (যার দাম পড়বে ৬ টাকা)

এক পিস খেজুর, এক পিস পেয়াজু, এক পিস বেগুনি, এক পিস ছোট জিলাপি, এক মুঠো মুড়ি এবং সামান্য কিছু ছোলা।

আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ৩০ টাকার ইফতারের দাওয়াত দিয়েছে বিএনপি। রোববার (২৬ মে) বিকেল সোয়া ৪টায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ

দাওয়াতপত্র পৌঁছে দেন বিএনপির সহদফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু ও বেলাল আহমেদ। তাদের কাছ থেকে দাওয়াতপত্র গ্রহণ করেন আওয়ামী লীগের উপদফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

তাইফুল ইসলাম টিপু বলেন, ‘বিকেল সোয়া ৪টায় আমরা আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে দাওয়াতপত্র পৌঁছে দিই। আমাদের কাছ থেকে দাওয়াপত্র গ্রহণ করেছেন ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

আগামী ২৮ মে রাজধানীর লেডিস ক্লাবে রাজনীতিবিদ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও বিশিষ্টজনদের সম্মানে ইফতার মাহফিল আয়োজন করতে যাচ্ছে বিএনপি। সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, ওই ইফতার মাহফিলে দামি কোনো খাবার আইটেম থাকবে না।

খুবই সাদামাটা আইটেম দিয়ে অতিথিদের ইফতার করাবে বিএনপি। দলের চেয়ারপাসন কারাবন্দি খালেদা জিয়ার প্রতি সম্মান দেখাতেই তাদের এই ব্যাতিক্রমধর্মী উদ্যোগ।

জানা গেছে, রাজনীতিবিদদের জন্য ইফতার আয়োজনের সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় বিএনপির কয়েকজন নেতা অতিথিদের জন্য যথারীতি দামি খাবারের আয়োজন করার প্রস্তাব দেন।

তবে দলের নেতাদের জন্য কারাবিধি অনুযায়ী ৩০ টাকার ইফতার আয়োজনের প্রস্তাব ছিল তাদের। যেহেতু একই টেবিলে বসে অতিথিদের সঙ্গে বিএনপির সিনিয়র নেতারা ইফতার করেন, সেহেতু দুই ধরনের ইফতার আইটেম রাখা বাস্তবসম্মত নয়।

তথ্য: শীর্ষকাগজ

২০২২ সালের মধ্যে ধ্বংস হয়ে যাবে ইসরাইল: মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা

ইরানের নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনী ২০১৬ সালেই বলেছিলেন, আগামী ২৫ বছরের মধ্যে ইসরাইলের অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে। ইসরাইল যদি (ইরানকে আক্রমণ করার মতো ) কোনো ভুল বা অন্যায় করে বসে তাহলে আমরা তেল আবিব এবং হাইফা নগরীকে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেব।

২০২২ সালের আগেই ধ্বংস হয়ে যাবে মধ্যপ্রাচ্যের আধিপত্যকামী দেশ ইহুদিবাদী ইসরাইল বলে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার গবেষণায় উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক পোস্টের এক খবরে বলা হয়েছে, ইসরাইল এখন অনেক দুর্বল ও অনিরাপদ। ভবিষ্যৎ নিয়ে এখন ইসরাইলি নাগরিকরা উদ্বিগ্ন ও সন্দিহান।

‘নিউইয়র্ক পোস্ট’ কিসিঞ্জারের উদ্ধৃতি দিয়ে বলে, ১০ বছরের মধ্যে ইসরাইল আর থাকবে না। অর্থাৎ কিসিঞ্জারের মতে ২০২২ সালে ইসরাইল আর বিদ্যমান থাকবে না।

দেশটির পৃষ্ঠপোষকরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছে, ইসরাইলের যুদ্ধে জেতার দিন পুরোপুরি শেষ হয়ে গেছে। এখন যদি ইসরাইল যুদ্ধ শুরু করে তাহলে সেই যুদ্ধ দেশটির ইচ্ছায় শেষ হবে না।

যুদ্ধ যদি প্রলম্বিত ও দীর্ঘায়িত হয় তাহলে ইসরাইল ভয়াবহ ও অপূরণীয় ক্ষয়ক্ষতির শিকার হবে এবং তা ইসরাইলের অস্তিত্বকেই করবে হুমকিগ্রস্ত বলেও জানিয়েছেন পৃষ্ঠপোষকরা।

এছাড়া ইসরাইল আরব বসন্ত, ইসলামি জাগরণ এবং ইরানের উত্থানের সমম্বয়ে গঠিত ফিলিস্তিনপন্থী ভবিষ্যৎ শক্তিকে মোকাবেলা ও প্রতিহত করতে পারবে না বলে ১৬টি মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা একমত পোষণ করে।

Holiday পত্রিকায় ২০১৩ সালের ১২ মার্চ মার্কিন লেখক Kevin Barrett একটি প্রবন্ধ লেখেন।

‘Kissinger, US intelligence endorse a world without Israel’ শিরোনামের প্রবন্ধে বলা হয়, কয়েকটি সংবাদ প্রতিবেদনে প্রকাশ, সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হেনরি কিসিঞ্জার এবং আরও ১৬টি মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা একমত প্রকাশ করেছেন যে, অতি নিকট ভবিষ্যতে ইসরাইল আর টিকে থাকবে না।

কিসিঞ্জারের মতো মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো যদিও নির্দিষ্ট করে সময়সীমার কথা উল্লেখ করেনি। কিন্তু তারা (১৬টি গোয়েন্দা সংস্থা) ৮২ পৃষ্ঠার একটি বিশ্লেষণ প্রকাশ করে। যার শিরোনাম ছিল, একটি ইসরাইলোত্তর মধ্যপ্রাচ্যের জন্য প্রস্তুতি ( Preparing for a Post-Israel Middle East )

এদিকে ২০০৭ সালের ১২ ডিসেম্বরে ইসরাইলি সংবাদপত্র ইয়েদিঔত আহারোনৌত পত্রিকায় দেশটির অধ্যাপক গাবি শেফার একটি প্রবন্ধ লেখেন। যার শিরোনাম ছিল ‘We won’t win in Gaza’ তথা ‘আমরা গাজায় কখনো জিততে পারব না’।

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে