ওসি মোয়াজ্জেম পলাতক, তাই খুঁজে পেতে সময় লাগছে!

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ফেনীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফী হত্যার ঘটনায় সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে শাস্তি পেতেই হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, ওসি মোয়াজ্জেম যতটুকু অপরাধ করেছেন, সেই অপরাধের শাস্তি তাকে পেতেই হবে। নুসরাত হত্যায় জড়িতরা কেউ ছাড় পাবে না, সে যে-ই হোক। আর মোয়াজ্জেম যেহেতু পলাতক আছেন, তাই তাকে খুঁজে পেতে একটু সময় লাগছে। কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। আজ (রোববার) দুপুরে সচিবালয়ে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়কালে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় দেশের আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ে সন্তোষ জানান তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলৈন, ঈদে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই ভালো ছিল। অজ্ঞান ও মলম পার্টি ছিল না। মানুষের বাসা-বাড়িও ছিল নিরাপদ। সদরঘাট, রেল স্টেশন, বিনোদন কেন্দ্র, বাসস্টেশন সব জায়গায় মানুষের চাপ ছিল। তারপরও সবাই আনন্দ করেছে।

সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন তিনি আরও বলেন, দুয়েকটি দুর্ঘটনা ছাড়া অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটেনি। ঈদের সময় কোস্টগার্ড, পুলিশ, র‌্যাবসহ গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা তৎপর ছিলেন। তারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানের পাইলটের পাসপোর্ট ছাড়া দেশত্যাগ নিয়ে আলোচনা হচ্ছে।

এজন্য সবাই ইমিগ্রেশন বিভাগকে দোষারোপ করছে। আমি এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে দেখেছি, ইমিগ্রেশন বিভাগ এ ইস্যুতে সেভাবে দায়ী নয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও জানান, ইমিগ্রেশনে যে স্লিপটি জমা দিতে হয়, পাইলট তা দিয়েছিলেন। ইমিগ্রেশন বিভাগ পাইলটের ফিঙ্গারপ্রিন্টও নিয়েছিল। কিন্তু পাইলটের সঙ্গে পাসপোর্ট আছে কিনা সেটি জিজ্ঞাসা না করা এবং পাসপোর্ট দেখতে না চাওয়া তাদের গাফিলতি।

ইমিগ্রেশনের সবাই দায়িত্বশীল হলে এ ঘটনা এড়ানো যেত। তারপরও তদন্ত কমিটি হয়েছে, তদন্ত প্রতিবেদন সাপেক্ষে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো সংবাদ পরতে পারেন

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে