বিশ্বকাপ নাকি ‘বৃষ্টিকাপ’!

ব্রিস্টলে খেলা দেখতে আসা বাংলাদেশি সমর্থকরা যেন অলস সময় পার করছেন। ছবি-সংগৃহীত বিশ্বকাপ নাকি ‘বৃষ্টিকাপ’! ইংল্যান্ডে চলমান বিশ্বকাপের আমেজকে ধুয়ে দিচ্ছে বৃষ্টি।

১০ দলের বিশ্বকাপ চলবে ৬ সপ্তাহ। যার মধ্যে দুই সপ্তাহ না যেতেই ইতোমধ্যে তিনটি ম্যাচ চলে গেছে বৃষ্টির পেটে। গত ৭ জুন ব্রিস্টলে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা,

১০ জুন সাউদাম্পটনে দক্ষিণ আফ্রিকা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং সবশেষ আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছে। গত ৪ জুন শ্রীলঙ্কা-আফগানিস্তান ম্যাচটিও বৃষ্টির কবলে পড়েছিল।

জুন-জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের এই আবহাওয়া প্রত্যাশিতই বলা চলে। ব্যাট-বলের লড়াইকে দর্শক বানিয়ে বিশ্বকাপে রাজত্ব করছে বেরসিক বৃষ্টি।

কাশ্মীরে ৮ বছরের শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যা: ৬ জন দোষী সাব্যস্ত

জম্মু ও কাশ্মীরের কাঠুয়ায় বালিকাকে নৃশংসভাবে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় ছয়জনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে ভারতের আদালত। বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে একজনকে।

ঘটনার প্রায় এক বছরের মাথায় আজ সোমবার এই রায় দিল পাঠানকোটের আদালত। আজই দোষীদের সাজা ঘোষণা করার কথা।

আট অভিযুক্তের মধ্যে একজন নিজেকে নাবালক বলে দাবি করে তার অভিযোগের শুনানি বিশেষ আদালতে করার আবেদন জানিয়েছে।

জেলা ও নগর দায়রা আদালতের বিচারক তেজবিন্দর সিং এক-এক করে প্রত্যেক অভিযুক্তের বক্তব্য শোনেন। কারণ প্রত্যেকের বিরুদ্ধে আলাদা আলাদা অভিযোগ ছিল। ৩ জুন শেষ হয় ট্রায়াল।

আট বছরের বালিকাকে সাতদিন আটকে রেখে লাগাতার গণধর্ষণ ও তারপর নির্মমভাবে খুনের ঘটনায় তোলপাড় পড়ে গিয়েছিল দেশজুড়ে। ঘটনার তিন মাস পর পুলিশের চার্জশিটে জম্মুর হাড়হিম ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। দোষীদের শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হয় সোশ্যাল মিডিয়া। প্রতিবাদে ফেটে পড়েন সেলিব্রিটিরা।

ফুটফুটে মেয়েটি আদরের ঘোড়াটিকে চরাতে চরাতে চলে গিয়েছিল বাড়ির অদূরে বনের ধারে। তারপর সাতদিন সে নিখোঁজ ছিল। সাতদিন পর জঙ্গলের রাস্তাতেই উদ্ধার হয় তার ক্ষতবিক্ষত লাশ। ১৭ জানুয়ারি লাশ উদ্ধারের তিন মাস পর আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ।

চার্জশিটে পুলিশি তদন্তের যে ছবি উঠে আসে, তা ভয়ংকর। মন্দিরে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অবসন্ন মেয়েটিকে সাত দিন ধরে ধর্ষণ করে ছয়জন। এদের মধ্যে দুজন পুলিশকর্মী।

ধর্ষণের জন্য মেরঠ থেকেও একজনকে ডেকে পাঠায় ঘটনার মূলচক্রী মন্দিরের কেয়ারটেকার। ক্ষুধার্ত, মৃতপ্রায় মেয়েটিকে খুনের আগেও ছাড় দেয়া হয়নি। গলায় ফাঁস দিয়ে মারার আগেও তাকে শেষবারের মতো ধর্ষণ করে এক পুলিশ কর্মী। তারপর মাথা পাথর দিয়ে থেঁতলে মারা হয় মেয়েটিকে।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

আরো সংবাদ পরতে পারেন

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে