আশা জাগিয়েও অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে গেল পাকিস্তান!

ম্যাচসেরা ডেভিড ওয়ার্নার ম্যাচসেরা ডেভিড ওয়ার্নার পাকিস্তানকে ৪১ রানের ব্যবধানে হারিয়ে চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় জয় তুলে নিয়েছে বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। এর ফলে দু’দলের শেষ ছয় দেখার প্রত্যেকটি ম্যাচেই জয়ের স্বাদ পেল অজিরা।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত ওয়ানডে সিরিজে ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইট ওয়াশের শিকার হয়েছিল পাকিস্তান। আজ (বুধবার) ইংল্যান্ডের টন্টনে আগে ব্যাট করে ৪৯ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ৩০৭ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। ৩০৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে অজি বোলারদের তোপে ২৬৬ রানে গুটিয়ে গেছে পাকিস্তানের ইনিংস।

৩০৮ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নামেন ইমাম-উল হক এবং ফখর জামান। কোনো রান না করেই বিদায় নেন ফখর। দ্বিতীয় উইকেটে ৫৪ রান যোগ করেছেন ইমাম ও বাবর আজম। বাবর ৩০ রান করে ফিরলে এই জুটি ভাঙে। ইমাম অর্ধশতক তুলে নিয়ে ৭৫ বলে ৫৩ রান করে আউট হয়েছেন।

মোহাম্মদ হাফিজ দারুণ শুরু পেলেও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। ওয়াহাব রিয়াজ ও সরফরাজ আহমেদ অস্ট্রেলিয়াকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছিল তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ৪৬ রান। এরপর দ্রুতই ফিরেছেন শোয়েব মালিক (০) ও আসিফ আলী (৫)। মূলত এই দুজন দ্রুত ফেরার ফলেই ম্যাচ থেকে অনেকটা ছিটকে যায় পাকিস্তান।

সপ্তম উইকেটে ঝড় তুলে পাকিস্তানকে খেলায় ফিরিয়ে আনেন হাসান আলী। মাত্র ১৫ বলে ৩টি করে চার-ছক্কায় ৩২ রানের ক্যামিও খেলে রিচার্ডসনের বলির পাঁঠা হয়ে ফিরলেও লড়াইয়ে ছিল দলটি। পরে ক্রিজে এসে পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তোলেন ওয়াহাব রিয়াজ। তাকে দারুণ সঙ্গ দেন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।

এক পর্যায়ে জমাট বেঁধে ওঠে তাদের জুটি। এতে জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করে পাকিস্তান। কিন্তু আশা জাগিয়ে মিচেল স্টার্কের বাউন্সার ছোবলে ফেরেন ওয়াহাব। ফেরার আগে ৩৯ বলে ২ চারের বিপরীতে ৩ ছক্কায় ৪৫ রানের লড়াকু ইনিংস খেলেন তিনি। শেষ দিকে বোলারদের নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান পাকিস্তান দলপতি সরফরাজ আহমেদ।

একপ্রান্ত আগলে রাখা সরফরাজ ৪০ রান করে রান আউট হলে পাকিস্তানের ইনিংস গুটিয়ে যায় ২৬৬ রানে। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে প্যাট কমিন্স নিয়েছেন ৩টি উইকেট। ২টি করে উইকেট গেছে মিচেল স্টার্ক ও কেন রিচার্ডসনের ঝুলিতে। ১টি করে উইকেট পেয়েছেন নাথান কোল্টার নাইল ও অ্যারন ফিঞ্চ।

এর আগে, ডেভিড ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি ও অ্যারন ফিঞ্চের পাকিস্তানের বিপক্ষে বড় পুঁজি গড়ে অস্ট্রেলিয়া। ২২.১ ওভারে ওপেনিং জুটিতে ওয়ার্নার এবং ফিঞ্চ তুলে নেন ১৪৬ রান। ২৩তম ওভারে আমিরের প্রথম বলে উইকেট দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক ফিঞ্চ (৮২)। তার ৮৪ বলে সাজানো ইনিংসে ছিল ৬টি চার আর ৪টি ছক্কার মার।

অজিরা দ্বিতীয় উইকেট হারায় দলীয় ১৮৯ রানের মাথায়। ইনফর্ম ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ বিদায় নেন ১০ রান করে। এরপর গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে নিয়ে এগুতে থাকেন ওয়ার্নার। ১০ বলে ২০ রান করে বিদায় নেন ম্যাক্সওয়েল। ইনিংসের ৩৬তম ওভারে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৫তম সেঞ্চুরি স্পর্শ করেন ওয়ার্নার।

তার আগে ৫১ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন তিনি। শাহিন শাহ আফ্রিদির বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন তিনি। ৯৮ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ওয়ার্নার। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরার পর এটিই তার প্রথম সেঞ্চুরি। দলীয় ২৪২ রানের মাথায় ওয়ার্নার বিদায় নেওয়ার আগে ১১১ বলে ১১টি চার আর একটি ছক্কায় করেন ১০৭ রান।

আরো সংবাদ পরতে পারেন

মতামত দেওয়া বন্ধ আছে